রায়গঞ্জ পৌরসভা নিয়ে মেয়র আবদুল্লাহ আল পাঠানের ভাবনা

রায়গঞ্জ পৌরসভা নিয়ে মেয়র আবদুল্লাহ আল পাঠানের ভাবনা

আলী হায়দার আব্বাসী, রায়গঞ্জ (সিরাজগঞ্জ) থেকে: মেয়র আবদুল্লাহ আল পাঠান রায়গঞ্জ পৌরসভাকে ঘিরে তার নানা পরিকল্পনার কথা জানালেন। এর মধ্যে রয়েছে পৌরসভার প্রাণকেন্দ্র মূল বাজার ও আবাসিক এলাকা ধ্বংসকারী উন্নয়ন প্রতিবন্ধক ফুলজোড় নদী শাসন ও প্যালাসাইটিং বাঁধ নির্মাণ, ঘরে ঘরে বিদ্যুত সরবরাহ, পয়োঃনিষ্কাষণ। পৌরবাসীর স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করার লক্ষ্যে ৫০ শয্যাবিশিষ্ট হাসপাতাল নির্মাণ এবং নার্সিং ট্রেনিং সেন্টার নির্মাণের উপর বিশেষ গুরুত্বারোপ করেন মেয়র। এ ব্যাপারে তিনি জানান, স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স নির্মাণের জন্য ইতিপূর্বে ১৪ বিঘা জমি স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অনুকূলে রেজিষ্ট্রি করে দেয়ায় প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করা সহজ হবে। আর এ ব্যাপারে তিনি স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বপ্রাপ্ত মন্ত্রী মোঃ নাসিমের সহযোগিতা কামনা করেছেন। মাদকমুক্ত রায়গঞ্জ পৌরসভা গঠনের ঘোষণা দিয়ে মেয়র বলেন, যদিও বিষয়টি চ্যালেঞ্জিং। তারপরও এটি আমি করেই ছাড়বো এবং শিক্ষার হার শতভাগ নিশ্চিত করার লক্ষ্যে ঝরে পড়া ছাত্র/ছাত্রীদের পুনর্বাসনের ব্যবস্থা করবো। পৌরসভার সীমানা সংক্রান্ত জটিলতার বিষয় উল্লেখ করে মেয়র আবদুল্লাহ আল পাঠান বলেন, ২০০৫ সালে রায়গঞ্জ পৌরসভা প্রতিষ্ঠাকালে সীমানা নির্ধারণে নানা সমীকরণ করা হয়েছিল। যা অত্যন্ত দুঃখের বিষয়। যেমন- একই মৌজার একই দাগে দুটি বাড়ির একটি পৌরসভায় অপরটি ইউনিয়ন পরিষদে রেখে সীমানা নির্ধারণ করে জটিলতা সৃষ্টি করা হয়। রায়গঞ্জ পৌরসভাকে ‘গ’ শ্রেণী থেকে ‘ক’ শ্রেণীতে রূপান্তর করতে চান মেয়র আবদুল্লাহ। পৌরবাসীর চিত্ত বিনোদনের জন্য আধুনিক মানসম্মত পৌর পার্ক করার কথা উল্লেখ করে তিনি। পৌরসভার চলমান সমস্যাগুলোর গুরুত্বানুসারে ধাপে ধাপে সকল সমস্যার সমাধান করতে চান।