দিনাজপুরে সংঘর্ষের জেরে অনির্দিষ্টকালের বাস ধর্মঘট

দিনাজপুরে সংঘর্ষের জেরে অনির্দিষ্টকালের বাস ধর্মঘট

শাহ্ আলম শাহী, দিনাজপুর : দিনাজপুর হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের সাথে বাস পরিবহন শ্রমিকদের সংঘর্ষে কমপক্ষে ৭ জন আহত হয়েছে। বিক্ষুদ্ধ শিক্ষার্থীরা আগুনে পুড়িয়ে দিয়েছে যাত্রীবাহী দু’টি বাস। শিক্ষার্থীরা বিশ্ববিদ্যালয়ের সামনের মহাসড়ক অবরোধ করায় দিনাজপুর-দশমাইল মহাসড়কে সব ধরনের যান চলাচল বন্ধ রয়েছে। ঘটনাস্থলে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করেছে প্রশাসন। পুলিশ ও প্রশাসন পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা অব্যাহত রেখেছে বলে জানিয়েছেন, দিনাজপুর পুলিশ সুপার হামিদুল আলম।
এদিকে দিনাজপুরে হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (হাবিপ্রবি) শিক্ষার্থীদের সঙ্গে মোটর পরিবহন শ্রমিকদের সংঘর্ষ ও হতাহতের ঘটনায় দিনাজপুর রুটে অনির্দিষ্টকালের জন্য ধর্মঘটের ডাক দিয়েছে দিনাজপুর মোটর পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়ন। এ ঘটনায় বন্ধ হয়ে গেছে দিনাজপুর-রংপুর রুটে যান চলাচল।
দিনাজপুর মোটর পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক ফজলে রাব্বী জানান, দ’ুটি বাসে অগ্নিসংযোগ ও শ্রমিকদের ওপর হামলার প্রতিবাদে দিনাজপুরের সব রুটে অনির্দিষ্টকালের জন্য পরিবহন ধর্মঘট ডাকা হয়েছে।
বুধবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় দিনাজপুর হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্র্থীবাহী একটি বাসের সাথে সরকারী কলেজ মোড়ে বেসরকারী পরিবহন একটি যাত্রীবাহী বাসের ধাক্কা লাগাকে কেন্দ্র করে শিক্ষার্থী ও বাস শ্রমিকদের মধ্যে বাক-বিতন্ডার এক পর্যায়ে সংঘর্ষ বেধে যায়। পরে শিক্ষার্থীরা কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনালে শ্রমিকদের উপর চড়াও হলে উভয়ের মধ্যে সংঘর্ষে ৫ শিক্ষার্থীসহ ৭ জন আহত হয়। এরমধ্যে ৩ জনের অবস্থা আশংকাজনক। তাদের দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনা বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাসে ছড়িয়ে পড়লে বিক্ষুদ্ধ শিক্ষার্থীরা বিশ্ববিদ্যালয়ের সামনের মহাসড়কে দু’টি যাত্রীবাহী বাসে হামলা চালিয়ে আগুন লাগিয়ে দেয়। বাস দু’টি সম্পূর্ণরূপে ভস্মিভুত হয়।
দিনাজপুর বাস মালিক গ্রæপের সাধারণ সম্পাদক নজরুল ইসলাম সেলু জানায়, পুড়ে যাওয়া বাস দু’টির মালিক একজন হলেন ভবানী শংকর আগরওয়ালা এবং অপরজন তোফাজ্জল হোসেন।
ঘটনার পর বিক্ষুদ্ধ শিক্ষার্থীরা বিশ্বাবিদ্যালয়ের সামনের মহাসড়ক অবরোধ করায় দিনাজপুর-দশমাইল মহাসড়কে সব ধরনের যান চলাচল বন্ধ রয়েছে। ঘটনাস্থলে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করেছে প্রশাসন। পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা অব্যাহত রেখেছে বলে জানিয়েছেন দিনাজপুর পুলিশ সুপার হামিদুল আলম।
শিক্ষার্থীদের সাখে বাস শ্রমিকদের সংঘর্ষের ঘটনা স্বীকার করেছেন, বিশ্বদ্যিালয়ের রেজিষ্ট্রার প্রফেসর ড. সফিকুল আলম। শিক্ষার্র্থী আহত হওয়ার ঘটনায় শিক্ষার্থীদের মধ্যে এখন চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে।