এই প্রথম একসঙ্গে মিলি ও উর্মিলা

এই প্রথম একসঙ্গে মিলি ও উর্মিলা


বিনোদন ডেস্ক :
ছোটপর্দার নন্দিত দুই অভিনেত্রী। একজন ফারহানা মিলি এবং অন্যজন উর্মিলা শ্রাবন্তী কর। দুজনের দীর্ঘদিন অভিনয়ের আঙ্গিনায় বিচরণ হলেও একসঙ্গে দুজনের কাজ করা হয়নি। নঈম ইমিতয়াজ নেয়ামুলের নির্দেশনায় ‘কাগজের ফুল’ ধারাবাহিক নাটকে জবা চরিত্রে র্দীর্ঘদিন ধরেই অভিনয় করছেন ফারহানা মিলি। নাটকে নতুন একটি চরিত্র কুসুম। এতে আবির্ভাব ঘটেছে উর্মিলা শ্রাবন্তী করের।
সম্প্রতি রাজধানীর অদূরে পূবাইলে এই নাটকের শুটিংয়ে অংশ নেন মিলি ও উর্মিলা। দুজনে একসঙ্গে এবারই প্রথম কোনো নাটকে দুজন ক্যামেরার সামনে প্রথম দাঁড়ালেন। তবে সহশিল্পী হিসেবে এই নাটকের শুটিংয়ে সেদিন আরো উপস্থিত ছিলেন মীর সাব্বির, সাজু খাদেম, রাশেদ মামুন অপু ও স্বাগতা। ‘কাগজের ফুল’ ধারাবাহিকে ফারহানা মিলির বিপরীতে অভিনয় করছেন মীর সাব্বির। নাটকটিতে উর্মিলার সঙ্গে প্রথম অভিনয় প্রসঙ্গে ফারহানা মিলি বলেন, ‘উর্মিলার অভিনীত নাটক দেখেছি আমি। তবে তার সঙ্গে কখনোই কাজ করা হয়নি। কাগজের ফুল ধারাবাহিকের মাধ্যমে প্রথম তারসঙ্গে কাজ করা। প্রথমদিন আমরা দুটো দৃশ্যে একসঙ্গে অভিনয় করেছি। দুটো দৃশ্যেই তার সঙ্গে কাজ করতে আমি বেশ স্বাচ্ছন্ধ্যবোধ করেছি। তার সঙ্গে এর আগে গল্প বা আড্ডা দেয়ার তেমন কোনো সুযোগও হয়নি। তাই ব্যক্তি উর্মিলা প্রসঙ্গে আমার ধারণাও ছিলো না। কিন্তু কাজ করে মনে হয়েছে ভালো মনের একজন মানুষ।’ উর্মিলা শ্রাবন্তী কর বলেন, ‘মিলি আপুর সঙ্গে এটি আমার জীবনের প্রথম কাজ। সেদিন তার সঙ্গে প্রথম ক্যামেরার সামনে দাঁড়ানো। মিলি আপু আমার খুবই পছন্দের একজন মানুষ, পছন্দের একজন শিল্পী। একজন পরিপূর্ণ অভিনেত্রী হওয়ার অনেক গুণাবলীই তার মধ্যে আছে। তার সঙ্গে প্রথম কাজটা আমি বেশ উপভোগ করেছি। বলা যায়, একটি অর্থবহ স্মৃতিময় জার্নি হয়ে থাকবে।’
ফারহানা মিলি এরই মধ্যে ঈদের কাজ শুরু করেছেন। মোশাররফ করিমের সঙ্গে একটি নাটকের কাজ শেষ করেছেন তিনি। পাশাপাশি ধারাবাহিক নাটক শাহীনের ‘সোনাভান’ ও সঞ্জিত সরকারের ‘মজনু একজন পাগল নহে’তে নিয়মিত অভিনয় করছেন। ‘মনপুরা’ মিলি অভিনীত একমাত্র চলচ্চিত্র। এই চলচ্চিত্রের পর মিলি আজও মনের মতো কোন গল্প পাননি বলে ফের চলচ্চিত্রে তাকে দেখা যায়নি। উর্মিলা শ্রাবন্তী কর আপাতত চট্টগ্রামে আছেন দুই বন্ধু মোজাফফর ও চন্দনের বিয়ের জন্য। সেখান থেকে তিনি ৬ মে ফিরবেন।




Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Time limit is exhausted. Please reload CAPTCHA.